আপনি কি ফেসবুক মার্কেটিং করে ইনকাম করতে চান ? তাহলে দেখুন ফেসবুক থেকে ইনকাম করার সেরা দুইটি উপায় পার্ট ১

আসসালামুআলাইকুম বন্ধুরা কেমন আছেন সবাই আশাকরি সকলেই ভাল রয়েছেন ইনশাআল্লাহ আমিও খুব ভালো রয়েছি তাই আজকে আপনাদের সাথে আরো নতুন একটি পোস্ট নিয়ে হাজির হলাম আশা করি যারা ফেসবুক মার্কেটিং করতে চাচ্ছেন এবং ফেসবুক নিয়ে কাজ করতে চাচ্ছেন তারা উপকৃত হবেন এবং যারা অনলাইন থেকে ইনকাম করতে চাচ্ছেন ফেসবুকের মাধ্যমে তারা অবশ্যই এই পোস্টটি দেখে নিবেন কেননা এখান থেকে আমরা অনেকগুলো বিষয় সম্পর্কে জানব ফেসবুক মার্কেটিং সহ কিভাবে আপনি ফেসবুকে গ্রুপ অর্থাৎ ফেসবুক গ্রুপ এবং ফেসবুক পেজ খুব সহজে জনপ্রিয়তা তৈরি করে তুলবেন এবং কিভাবে আপনি ফেসবুক থেকে খুব সহজভাবে ইনকাম করবেন বিস্তারিত বিষয়গুলো নিয়ে।

ফেসবুক চিনে না এমন মানুষ হয়তো বর্তমানে নেই আমরা সকলে ফেসবুক নামটি শুনেছি এবং বেশিরভাগ মানুষ কিন্তু এই ফেসবুক ব্যবহার করে থাকি বিশ্বের অন্যতম একটি সোশ্যাল মিডিয়ায় হচ্ছে ফেসবুক এখানে কোটি কোটি ইউজার রয়েছে এখানে আমরা সাধারণত ভিডিও চ্যাট টেক্স এইগুলো করার জন্য বা দেখার জন্য ফেসবুক ব্যবহার করে থাকি অর্থাৎ যোগাযোগের অন্যতম একটি মাধ্যম কিন্তু ফেসবুক এখান থেকে আমরা যেকোন মানুষের সাথে যোগাযোগ করতে পারি এবং তার সাথে কথা বলতে পারে ভিডিও কলে অথবা অডিও কল এছাড়া ফেসবুক আরও বিভিন্ন ধরনের ফিউচার রয়েছে তো আজকের পর থেকে আমরা জানবো সর্বপ্রথম যে কিভাবে ফেসবুক থেকে ইনকাম করবেন প্রথম দুটি ভাগ অর্থাৎ আপনি যদি ফেসবুক মার্কেটিং করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই দুটি ধাপ শেষ করতে হবে তারপরে কিন্তু আপনি সফলভাবে ফেসবুক মার্কেটিং করতে পারবেন।

সবসময় মনে রাখবেন যে যে কোন কাজে পরিশ্রম করার পরে কিন্তু সেই কাছ থেকে সফলতা অর্জন করা যায় সেইরকমই ফেসবুক থেকে যদি আপনি ইনকাম করতে চান তাহলে কিন্তু আপনাকে অনেক পরিমাণে পরিশ্রম করতে হবে কেননা অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া থেকে ফেসবুক থেকে ইনকাম করাটা কিন্তু কিছুটা কঠিন হয়ে যাবে আপনার জন্য কিন্তু আপনি যদি সবকিছু সহজভাবে বুঝা যায় এবং সবকিছু ভালোভাবে করতে পারেন তাহলে তাহলে কিন্তু খুব দ্রুত আপনি ফেসবুক থেকে সফলতা অর্জন করতে পারবেন এবং ফেসবুক থেকে ইনকাম করার অনেকগুলো রাস্তা পেয়ে যাবেন যেখান থেকে আপনি খুব সহজভাবে কিন্তু প্রতি মাসে ইনকাম করতে পারবেন।

প্রথম অবস্থায় আপনাকে শুধুমাত্র কাজ করতেই হবে যদি আপনি ভাবেন আমি প্রথম থেকে ইনকাম করব তাহলে কিন্তু আপনি কোনদিনও ফেসবুক থেকে ইনকাম করতে পারবেন না কেননা সেটা হচ্ছে বিশ্বের অন্যতম একটি সোশ্যাল মিডিয়া নেটওয়ার্ক সেখানে হাজার হাজার মানুষ কাজ করতেছে অর্থাৎ ফেসবুক মার্কেটিং করতেছে অবশ্যই আপনাকে আগে পরিশ্রম করে কাজ গুলো শিখতে হবে এবং সবগুলোই ভাল ভাবে জানতে হবে তারপরে কিন্তু আপনি ফেসবুক মার্কেটিং করতে পারবেন অর্থাৎ ফেসবুক থেকে প্রতিমাসে বা প্রতিদিন ভালো পরিমাণে ইনকাম করতে পারবেন।

ফেসবুক মার্কেটিং করার জন্য ফেসবুকে কাজ করার জন্য আপনার শুধুমাত্র একটি মোবাইল ফোন হলেই চলবে যদি আপনার অন্যান্য প্রযুক্তি থাকে অর্থাৎ ল্যাপটপ কম্পিউটার পিসি এধরনের যদি কিছু থাকে তাহলে আপনার কাছে আরও সহজ হয়ে যাবে ফেসবুক মার্কেটিং করার জন্য তবে আপনি চাইলে কোন প্রথম অবস্থায় শুধুমাত্র একটি মোবাইল ফোন দিয়ে ফেসবুক মার্কেটিং অর্থাৎ ফেসবুকে কাজ শুরু করতে পারেন এবং আস্তে আস্তে যদি আপনি সব কাজ গুলো বুঝেছেন পরবর্তী সময়ে কিন্তু আপনি শুধুমাত্র ফেসবুক থেকে ইনকাম করে ভালো একটি ল্যাপটপ অথবা পিসি কিনতে পারবেন তবে অবশ্যই মনে রাখবেন যে কোন কাজে আগে পরিশ্রম করতে হবে তারপর সেই কাজ থেকে সফলতা অর্জন করা যাবে।

ফেসবুক মার্কেটিং এর অন্যতম দুটি উপায় হচ্ছে ফেসবুক গ্রুপ এবং ফেসবুক পেজ এ দুটির মাধ্যমে কিন্তু বর্তমান সময়ে মানুষ অনেক পরিমাণে মার্কেটিং করতেছে এবং সেটি নিজের জন্য হোক বা অন্যের জন্য হোক যদি আপনি অন্য জনের ফেসবুক মার্কেটিং করেন তাহলে কিন্তু আপনার নিজস্ব কোন ফেসবুক পেজ অথবা গ্রুপ প্রয়োজন হবে না আর যদি আপনি নিজের জন্য করতে চান অর্থাৎ নিজের ফেসবুক মার্কেটিং করতে চান তাহলে কিন্তু আপনার প্রয়োজন হবে ফেসবুক পেজ এবং ফেসবুক গ্রুপ এ দুটি তারা কিন্তু আপনি ফেসবুকে মার্কেটিং করতে পারবেন মেইন কথা হচ্ছে ফেসবুক মার্কেটিং যাকে বলা হয় তার মধ্যে দুটি সেরা হচ্ছে ফেসবুক গ্রুপ এবং ফেসবুক পেজ এই দুটির মাধ্যমে কিন্তু সকল ধরনের মার্কেটিং করা হয়ে থাকে ফেসবুকে।

আমি আগে কথা বলবো যে কিভাবে আপনি ফেসবুক গ্রুপ এবং ফেসবুক পেজ খুব দ্রুত মার্কেটিং করার জন্য তৈরি করবেন এবং খুব সহজে কিভাবে সফলতা অর্জন করতে পারবেন এ দু’টি থেকে আর যদি আপনি প্রফেশনাল হয়ে থাকেন অর্থাৎ যারা বিভিন্ন ধরনের মার্কেটপ্লেসে কাজ করেন তাদেরকে কিন্তু ফেসবুক মার্কেটিং দেওয়া হয়ে থাকে অর্থাৎ মানুষের পর্নবক্স ফেসবুকে মার্কেটিং করতে হবে আমি সেটি সবার নিচে বলে দেবো কিভাবে আপনি ফেসবুক মার্কেটিং করে করবেন এবং কিভাবে মানুষ বর্তমান সময়ে ফেসবুক মার্কেটিং করতেছে এবং ইনকাম করেছে এই বিষয়গুলো আমি সব বলে দেব তার আগে বলে দেবো কিভাবে শুরু থেকে ফেসবুক গ্রুপ এবং ফেসবুক পেজ মানুষের কাছে জনপ্রিয়তা তৈরি করে অনেক বড় করে তুলবেন।

ফেসবুক থেকে ইনকাম করার উপায় কি কি

ফেসবুক থেকে ইনকাম করার বিভিন্ন ধরনের উপায় রয়েছে আপনার কাছে যে উপায়গুলো সহজ মনে হবে অর্থাৎ যে কাজগুলো আপনি খুব সহজভাবে করতে পারবেন সেই কাজগুলো সব সময় করার চেষ্টা করবেন কেননা সব কাজ আপনি দেখবেন তবে সবকিছু আস্তে আস্তে শিখলেই ভালো সর্বপ্রথম আপনাকে শিখতে হবে ফেসবুক গ্রুপ এবং ফেসবুক পেজ সম্পর্কে কারণ এতে দুটি মাধ্যমে কিন্তু আপনি ফেসবুকে মার্কেটিং শুরু করবেন এবং সকল ধরনের মার্কেটিং কিন্তু বিশেষ করে ফেসবুক গ্রুপ গুলোতে করা হয়ে থাকে বর্তমান সময় প্রথমে যদি আপনি চান আমি আমার নিজের গ্রুপ এর মাধ্যমে মার্কেটিং করবো তাহলে কিন্তু সবচেয়ে সহজ হবে এবং ইনকাম হবে কিন্তু বেশি করতে পারবেন যদি আপনার নিজের একটি ফেসবুক গ্রুপ থাকে।

কেননা বর্তমান সময়ে কিন্তু অন্যের গ্রুপ দ্বারা মার্কেটিং করা খুবই কঠিন বেশিরভাগ গ্রুপে দেখা যায় যে তারা আপনি যদি কোন জিনিস মার্কেটিং করেন অর্থাৎ ফেসবুক মার্কেটিং করেন তাহলে আপনার পোস্ট তারা অ্যাপ্রভেড করে না যদি আপনার একটি পোস্ট কোন গ্রুপে অ্যাপ্রুভ না করে তাহলে আপনি তো ফেসবুক মার্কেটিং করতে পারবেন না সেজন্য আপনার নিজের যদি কোন গ্রুপ থাকে তাহলে আপনার জন্য ফেসবুক মার্কেটিং করা খুবই সহজ হয়ে যাবে এবং সাধারণভাবে আপনি ফেসবুক গ্রুপ থেকে কিন্তু ইনকাম করতে পারবেন বর্তমান সময়ে আপনি যদি বড় বড় গ্রুপগুলোর লক্ষ করেন অর্থাৎ ফেসবুকে যে বড় বড় মেম্বার অনেক মেম্বারের গ্রুপ গুলো রয়েছে সেগুলো যদি আপনি ফলো করেন তাহলে দেখতে পাবেন বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট এর পোষ্ট দেখা যাচ্ছে।

এটি কিন্তু একটি মার্কেটিং এ ছাড়াও কিন্তু আপনি একটি ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে আপনার একটি ফেসবুক পেজ খুব দ্রুত জনপ্রিয়তা তৈরি করতে পারবেন মানুষের মধ্যে বর্তমান সময়ে কিন্তু ফেসবুক গ্রুপ এবং তারপর ফেসবুক পেজ এবং তারপর হচ্ছে ইউটিউব এ তিনটি কাজ খুব সহজভাবে করা যাচ্ছে যদি আপনি সবকিছু ভালোভাবে গুছিয়ে করতে পারেন তাহলে আপনার জন্য কিন্তু খুবই সহজ হয়ে যাবে এই তিনটি কাজ করে কিন্তু আপনি ইনকাম করতে পারবেন উদাহরণ প্রথমে আপনি একটি ফেসবুক গ্রুপ তৈরি করলেন সেখানে প্রতিদিন পোস্ট করবেন মানুষকে ইনভাইট করবেন আপনার গ্রুপটিতে জয়েন করার জন্য এবং বিভিন্ন ধরনের কোনো অফার থাকলে সেগুলো শেয়ার করবেন।

এভাবে যখন আপনার গ্রুপটিতে অনেক পরিমাণে মেম্বার ইনভাইট জয়েন হবে তখন কিন্তু আপনি একটি ফেসবুক পেজ সেখানে যদি এডমিন করে এবং পেজটিতে যদি ভিডিও আপলোড করে গ্রুপে শেয়ার করেন তাহলে কিন্তু মোটামুটি অনেক পরিমাণে ভিউ পাবেন। এর পরবর্তী সময় কিন্তু আপনার সেই ফেসবুক পেজটি খুব সহজভাবে ভিউ নিতে পারবেন এবং তার পরবর্তী সময় যখন আপনার সেই ফেসবুক পেজটি মানুষের কাছে জনপ্রিয়তা হয়ে উঠবে তখন কিন্তু চাইলে আপনি একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলে সেটি মার্কেটিং করতে পারবেন আপনার ফেসবুক পেজ এর মাধ্যমে অর্থাৎ ইউটিউব এর কোন ভিডিও নেই আপনি চাইলে আপনার ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে পারেন এবং সেখান থেকে ভিউস নিতে পারবেন।

আমি চেষ্টা করব আপনাদেরকে সহজ ভাবে বোঝানোর জন্য জানো আপনারা খুব সহজভাবে বুঝে জান আমি কি বুঝাতে চাচ্ছি আপনাদের কে এবং সে অনুযায়ী যেন আপনি ফেসবুকে কাজ করতে পারেন যদি আপনি সবকিছু সফলভাবে করতে পারেন তাহলে খুব দ্রুত আপনি ফেসবুক থেকে সফলতা অর্জন করতে পারবেন এবং পরবর্তী সময়ে খুব সহজভাবে আপনি কিন্তু ফেসবুক মার্কেটিং করতে পারবেন এখন আমরা শুরু থেকে জানবো এবং পুরোপুরি অবশ্যই মনোযোগ সহকারে পড়বেন তাহলে আশা করা যায় আপনি সফলতা অর্জন করতে পারবেন।

ফেসবুক পেজ কি ?‌

ফেসবুক পেজ এর মেইন কাজ হচ্ছে আপনি যদি কোন কিছু প্রচার করতে চান তাহলে সেটি ফেসবুকে থাকা সকল মানুষের কাছে কিন্তু আপনি খুব সহজভাবে সেটি পৌঁছে দিতে পারবেন সাধারণত আমরা যদি আমাদের ফেসবুক আইডিতে একটি পোস্ট করি এবং সেটা কিন্তু সর্বোচ্চ 5 হাজার মানুষ দেখতে পারবে অর্থাৎ আমাদের ফেসবুক আইডিতে কিন্তু 5000 ফ্রেন্ড লিমিট করা রয়েছে যদি আপনি একটি ফেসবুক পেজে একটি পোস্ট করেন এবং সেটি যদি মানুষের কাছে পৌছে দিতে চান তাহলে প্রথমত অবস্থায় আপনাকে সেই পোষ্টটি বুস্ট করতে হবে যাকে বলা হয় ফেসবুক বুস্ট তো আমরা যত সব কাজ ফ্রিতে করবো সেজন্য আমরা আগেই ফেসবুক পেজ বুস্ট করবো না সাধারণ যে উপায়গুলো রয়েছে ফেসবুক পেজটি জনপ্রিয়তা করার জন্য সে উপায়গুলো অবলম্বন করব।

এখন অনেকেই ভাবতে পারেন যে আমি একটি ফেসবুক পেজ তৈরি করার পর সেটি কিভাবে মানুষের কাছে পৌঁছাব এবং কিভাবে আমার ফেসবুক পেজ টিতে অনেক পরিমাণে like-follow নিতে পারব এটি কিন্তু সকলেই ভাবতে পারেন কেননা যারা নতুন তাদের কিন্তু প্রথম অবস্থায় অনেক পরিমাণে পরিশ্রম করতে হয় একটি ফেসবুক পেজের জন্য একটি ফেসবুক পেজ ভালোভাবে মানুষের কাছে পৌঁছাতে কিন্তু অনেক পরিমানে সময় লেগে যায় যদি আপনি নিয়মিত কাজ করেন তারপরও কিন্তু অনেক দিন সময় লেগে যাবে একটি ফেসবুক পেজ শুরু থেকে কাজ করার জন্য আর যদি আপনি কারও সাহায্য নিতে পারেন অর্থাৎ আপনার পরিচিত যদি কারো কোনো ফেসবুক বড় পেজ থাকে তাহলে কিন্তু আপনার পেজটি খুব সহজেই বড় করতে পারবেন।

ফেসবুক থেকে যদি আপনি ইনকাম করতে চান তাহলে তাদের কিছু পলিসি রয়েছে সেগুলো আপনাকে মেনে কাজ করতে হবে এবং এছাড়াও যদি আপনি ফেসবুকে অন্যের মার্কেটিং করতে চান তার পরও কিন্তু আপনার অনেক পরিমানে লাইক এবং ফলো থাকতে হবে ফেসবুক পেজ টিতে তো আমি শেয়ার করব যে কিভাবে আপনারা খুব সহজে আপনার ফেসবুক পেজটি তে লাইক এবং ফলো বৃদ্ধি করবেন যারা ফ্রিতে অনলাইনে কাজ করতে চাচ্ছেন প্রথম থেকে তাদের জন্য পোস্টটি আর যারা চাচ্ছেন যে আমি খুব দ্রুত আমার ফেসবুক পেজটি মানুষের কাছে জনপ্রিয়তা তৈরি করব তাহলে আপনার জন্য রয়েছে যে আপনি আপনার ফেসবুক পেজ বুস্ট করুন এর মাধ্যমে কিন্তু আপনি ফেসবুকে আপনার ফেসবুক পেজটি খুব দ্রুত জনপ্রিয়তা তৈরি করতে পারবেন।

যারা প্রথম থেকে শুরু করতে চাচ্ছেন এবং কিভাবে কাজ শুরু করবেন সেই বিষয়গুলো জানতে চাচ্ছেন তাদের জন্য এই পোস্টটি আমি এখানে বেশিরভাগ উপায়গুলো দেখাবো কিভাবে আপনি খুব সহজভাবে এবং ফ্রিতে আপনার ফেসবুক পেজ মানুষের কাছে জনপ্রিয়তা তৈরি করবেন এবং কি কি কাজ করা লাগবে ফেসবুক মার্কেটিং এর জন্য বিষয়গুলো।

ফেসবুক পেজ কিভাবে জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি করবো। ?

ফেসবুক থেকে ইনকাম করতে গেলে আপনাকে সর্বপ্রথম আপনার ফেসবুক পেজ টিতে মানুষের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি করতে হবে তারপর ঐ কিন্তু আপনি সেই ফেসবুক পেজ থেকে খুব সহজভাবে ইনকাম করতে পারবেন প্রথম আপনি যদি একটি সাধারন ফেসবুক পেজ তৈরি এবং সেটা থেকে ইনকাম করতে চান তাহলে আপনাকে প্রথমে যা করতে হবে সুন্দর ভাবে একটি ফেসবুক পেজ তৈরি করতে হবে শুধুমাত্র সাধারণভাবে মার্কেটিং করার জন্য আপনি ফেসবুক পেজ তৈরি করতে পারেন এছাড়াও মানুষ কিন্তু তাদের ইউটিউব চ্যানেল এবং ওয়েবসাইটের জন্য ফেসবুক পেজ তৈরি করে থাকে তাদের সাবজেক্ট গুলো হচ্ছে আলাদা আর আপনি যদি প্রথম থেকে শুরু করতে চান তো ফেসবুক মার্কেটিং করবো তাহলে আপনি শুধুমাত্র আপনার ফেসবুক আইডি থেকে একটি ফেসবুক পেজ খুলে নিন।

সুন্দরভাবে একটি ফেসবুক পেজ তৈরি করার পর আপনাকে সুন্দরভাবে প্রোফাইল পিকচার এবং কভার পিকচার দিতে হবে এর আগে আর একটি বিষয় হচ্ছে আপনি যে টপিক কে নিয়ে কাজ করতে চাচ্ছেন অবশ্যই সেই টপিক সম্পর্কিত একটি নাম আপনার পেজে দিবে অর্থাৎ আপনি যদি ফানি ভিডিও তৈরি করেন তাহলে আপনার পেজটি নাম অবশ্যই পানি রিলেটেড দিবেন এতে করে কিন্তু যখন আপনার একটি ফেসবুকের ভিডিও কেউ দেখবে তখন ফেসবুক পেজ টির নাম মনে থাকবে এবং পরবর্তী সময় তার কাছে যদি আপনার ভিডিওটি ভাল লাগে তাহলে সেটি শেয়ার করবে তার বন্ধুদের সাথে সুন্দর একটি নাম দিয়ে আপনার ফেসবুক পেজ তৈরি করার পর তার জন্য কভার ফটো এবং প্রোফাইল ফটো ভালোভাবে এডিট করে দিবেন এবং অবশ্যই প্রোফাইল ফটোটা খুব সুন্দর ভাবে দিবেন কেননা যখন মানুষ আপনার পেজে ভিডিওটি দেখবে তখন কিন্তু তার প্রোফাইলের দিকে নজর যাবে এবং ভালোভাবে দিতে পারেন তাহলে কিন্তু সে আপনার পেজ এর ভিতরে ঢুকে ঘুরে আসবে।

তারপর আপনাকে যা করতে হবে নিয়মিত পোস্ট করতে হবে আপনার ফেসবুক পেজ টিতে এর আগে আপনি আপনার ফেসবুক আইডি থেকে যত ফ্রেন্ড রয়েছে সবাইকে ইনভাইট করবেন আপনার ফেসবুক পেজটি তে লাইক করার জন্য এবং আপনার বন্ধুদের কে বলবেন তারা যেন লাইক করে তাদের বন্ধুদেরকে আপনার পেজে ইনভাইট করে পেজটি লাইক করার জন্য প্রথম অবস্থায় কিন্তু আপনার ভিডিও বা পোস্টগুলো মানুষের কাছে পৌঁছাবে না যখন অনেক পরিমাণে মানুষ আপনার পেজটিতে লাইক এবং ফলো করবে তখন ঐ কিন্তু ফেসবুক আপনার পোস্টটি মানুষের কাছে পৌছাবে এবং মানুষ আপনার পোস্ট বা ভিডিওগুলি দেখতে পারবে তখন ঐ কিন্তু আপনার পেইজের ফলোয়ার বা জনপ্রিয়তা যাকে বলা হয় সেটি বৃদ্ধি হবে।

যেহেতু আপনি সবকিছু ফ্রিতে করতে চাচ্ছেন এর জন্য আপনাকে প্রথমে আপনার বন্ধুদেরকে ইনভাইট করতে হবে আপনার ফেসবুক পেজটি তে লাইক এবং ফলো করার জন্য তারপর আপনি ফেসবুক পেজ টিতে নিয়মিত কাজ করবেন যদি আপনি ভিডিও কনটেন্ট নিয়ে কাজ করেন তাহলে আপনাকে নিয়মিত আপনার ফেসবুক পেজ টিতে ভিডিও আপলোড করতে হবে মানুষ যদি নাও থাকে তারপরও কিন্তু আপনাকে ফেসবুক পেজে ভিডিও আপলোড করতে হবে কেননা যখন আপনি নিয়মিত আপনার ফেসবুক পেজ টিতে ভিডিও আপলোড শুরু করে দেবেন তখন কিন্তু আপনার ফেসবুক পেজ টিতে আপনার বন্ধুরা ঢোকার পর কোনো ভালো ভিডিও পেলে বা তাদের ভাল লাগলে কোন ভিডিও সেটি শেয়ার করবে।

আপনি যে কোন টপিক নিয়ে কাজ করেন না কেন সব সময় চেষ্টা করবেন যেন মানুষ সেটি দেখতে আগ্রহী হয় যদি আপনি সাধারণত ফানি ভিডিও তৈরি করেন তাহলে আপনি টাইটেল গুলো এবং ভিডিও গুলো খুব ভালোভাবে তৈরি করবেন এতে করে কিন্তু আপনার ভিডিওটি মানুষের কাছে ভালো লাগবে এবং তারা নিয়মিত ভিডিও পাওয়ার জন্য আপনার ফেসবুক পেজটি লাইক করে দিবে আমি নিজেও কিন্তু একটি ফেসবুক পেজ নিয়ে কাজ করতেছি এবং প্রথম থেকে কাজ শুরু করেছি প্রথমত অবস্থায় আমার ফেসবুক পেজে আমি আমার ফেসবুক আইডি থেকে সকল বন্ধুদের ইনভাইট করি এবং সেখান থেকে কিছু লোক আমার ফেসবুক পেজটি তে লাইক এবং ফলো করে দেয় এখন যা দেখতে পারতেছি যে লাইক করার‌ পর পরবর্তী থেকে আমার ভিডিওগুলো অন্য মানুষ ও দেখতেছে প্রতিদিন ভিউজ বাড়তেছে।

আপনার ফেসবুক পেজ টিতে মানুষ লাইক ফলো করবে তখন কিন্তু আপনার ভিডিওগুলো অটোমেটিকভাবে বিভিন্ন মানুষের কাছে পৌছাবে এবং যখন তাদের কাছে সেই ভিডিওগুলো ভালো লাগবে তখন কিন্তু তারাও আপনার ফেসবুক পেজটি তে লাইক অথবা ফলো করে দেবে যে পরবর্তী ভিডিওগুলো পাওয়ার জন্য এজন্য আপনাকে সবকিছু খুব ভালোভাবে তৈরি করতে হবে আপনি যেকোন ভিডিও নিয়ে কাজ করেন না কেন চেষ্টা করবেন যে ফানি টাইপের ভিডিওগুলো নিয়ে কাজ করার জন্য অথবা “স্যাড রিএকশন” আমি আপনাকে আর কি বলব যদি আপনি ফেসবুকে ভিডিও গুলো দেখে থাকেন তাহলে চেষ্টা করবেন যে ভিডিও গুলো তে বর্তমান সময়ে খুব বেশি পরিমাণে ভিউজ হচ্ছে সেই রিলেটেড ভিডিও আপনার ফেসবুক পেজ টি তে আপলোড করার জন্য।

নিয়মিত আপনার ফেসবুক পেজে ভিডিও আপলোড করবেন এবং ভিডিও গুলো আপনাদের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন এছাড়া বিভিন্ন ধরনের যদি পাবলিক গ্রুপ থাকে অর্থাৎ যে গ্রুপগুলো তো পোস্ট করা মাত্র অটোমেটিকভাবে পোস্টগুলো পাবলিসিটি হয়ে যায় তাহলে সেই গ্রুপগুলো আপনার ফেসবুকের ভিডিও গুলো শেয়ার করবেন কেননা গ্রুপে কিন্তু অনেক পরিমাণে মেম্বার রয়েছে সেখান থেকে যদি আপনার ভিডিও দেখে এবং তার যদি ভালো লাগে তাহলে কিন্তু আপনারা ঘুরে দেখবে এবং সবকিছু যদি তাদের কাছে ভালো লাগে তাহলে কিন্তু অবশ্যই তারা আপনার ফেসবুক পেজটি লাইক ফলো করে দিবে ফেসবুক পেজ ফ্রিতে দ্রুত জনপ্রিয়তা তৈরি করার জন্য এগুলো অবশ্যই অবলম্বন করবেন তাহলে কিন্তু খুব দ্রুত আপনি ফেসবুক পেজটি মানুষের কাছে জনপ্রিয়তা এবং ফেসবুক মার্কেটিং শুরু করতে পারবেন।

এই ভাবে কাজ করলে কিন্তু আপনার ফেসবুক পেজটি দেখবেন যে কিছুদিনের ভিতর অনেক পরিমানে লাইক এবং ফলো হয়ে গেছে এবং আপনার ভিডিওগুলো খুব পরিমাণে ভিউজ হচ্ছে কেননা আপনি যদি একটি ভিডিও দেখেন এবং সেখানে যদি দেখতে পারেন যে 2 থেকে 3 মিলিয়ন ভিউ হয়েছে কিন্তু আপনি যখন তার ফেসবুক পেজ এর ভিতরে ঢুকে দেখবে যে লাইক এবং ফলো হয়েছে মাত্র 50 হাজার এর কারণ হচ্ছে তার ফেসবুক পেজটি তে লাইক এবং ফলো রয়েছে যার কারণে তার ভিডিও গুলো কোন প্রকার বুস্ট ছাড়াই অনেক মানুষের কাছে পৌঁছাচ্ছে আপনাকেও কিন্তু প্রথম থেকে যদিও আপনার ভিডিওগুলো তো খুব কম পরিমাণে ভিউজ আসতে পারে তারপরও কিন্তু আপনাকে নিয়মিত ভিডিও আপলোড করতে হবে ফেসবুক পেজ টিতে।

কিভাবে আপনি ফেসবুক মার্কেটিং করে ইনকাম শুরু করবেন ফেসবুক পেজ থেকে

উপরে আমরা আলোচনা করেছি যে কীভাবে আপনার ফেসবুক পেজটি মানুষের কাছে জনপ্রিয়তা তৈরি করে তুলবেন এখন আমরা আলোচনা করব যে আপনি কোন সময় থেকে আপনার ফেসবুক পেজ থেকে ইনকাম শুরু করতে পারবেন এবং কোন সময় থেকে আপনার ফেসবুক পেজ টিতে ফেসবুক মার্কেটিং হিসেবে কাজ শুরু করতে পারবেন প্রথমত অবস্থায় আপনাকে ফেসবুক মার্কেটিং এ আসা ঠিক করা যাবে না কেননা আপনার ফেসবুক পেজটি যখন একদম ছোট থাকবে তখন কিন্তু আপনাকে দ্বারা কেউ তাদের কোন প্রোডাক্ট বা পণ্য মার্কেটিং করাতে চাবে না যখন আপনার ফেসবুক পেজটি মানুষের কাছে খুবই পরিমাণে জনপ্রিয়তা হয়ে উঠবে তখন কিন্তু আপনি শুরু করতে পারবেন ফেসবুক মার্কেটিং অর্থাৎ ফেসবুক পেজ মার্কেটিং করে ইনকাম শুরু করতে পারবেন।

এছাড়াও কিন্তু ফেসবুক পেজ মার্কেটিং ছাড়া আপনি চাইলে কিন্তু ফেসবুক পেজ অফিশিয়াল ভাবে ইনকাম করতে পারবেন যদিও বর্তমান সময়ে মানুষ শুধুমাত্র মার্কেটিং করার জন্যই ফেসবুক পেজ ব্যবহার করে থাকে তবে আপনি চাইলে কিন্তু ফেসবুক পেজের অফিশিয়াল যে ইনকামের উপায় রয়েছে সেটিও কিন্তু ব্যবহার করতে পারেন তাহলে আপনি যে সময় মার্কেটিং করতে পারবে না তখন কিন্তু ফেসবুক অফিশিয়াল ভাবে ইনকাম করতে পারবেন এবং ইনকাম কিন্তু সেই সময় ডাবল হয়ে যাবে এর জন্য তাদের দুটি শর্ত রয়েছে সে দুটি শর্ত যদি আপনি পূরণ করতে পারেন তাহলে কিন্তু আপনি ফেসবুক পেজ অফিশিয়াল ভাবে ইনকাম করতে পারবেন ফেসবুক মার্কেটিং বা দেও।

আপনি যদি ভিডিও কনটেন্ট নিয়ে কাজ করেন তাহলেই কিন্তু আপনি ফেসবুক অফিশিয়াল ভাবে ইনকাম করতে পারবেন অফিশিয়াল ভাবে ইনকাম করতে হলে আপনাকে অবশ্যই ভিডিও কনটেন্ট নিয়ে কাজ করতে হবে তারপরে কিন্তু আপনি ফেসবুক অফিশিয়াল ভাবে আপনার ফেসবুক পেইজে মনিটাইজেশন নিতে পারবেন তো অবশ্যই আপনাকে ভিডিও কনটেন্ট নিয়ে কাজ করতে হবে তাহলে কিন্তু আপনি ফেসবুক অফিশিয়াল ভাবে আর্নিং করতে পারবেন যেমন টা যদি আপনি ইউটিউব সম্পর্কে জেনে থাকেন সেখানে সাবস্ক্রাইব এবং ভিডিও দেখার সময় আর এর উপরে মনিটাইজেশন দেয় সেই রকম কিন্তু ফেসবুকেও আপনার ভিডিও যখন মানুষ দেখবে এবং তাদের একটি লিমিট টাইম দেওয়া রয়েছে সেটি পূরণ করলেই কিন্তু আপনার একটি স্টেপ পূরণ হয়ে যাবে।

এর জন্য আপনার ভিডিও দেখার সময় প্রয়োজন হবে ৬০০.০০০ মিনিট এটি কিন্তু আপনাকে তিন মাসের ভিতরে করতে হবে অর্থাৎ আপনি যেকোন তিন মাসের ভিতরে আপনাকে এই সব শর্ত পূরণ করতে হবে যখন আপনার ফেসবুক পেজটি মানুষের কাছে জনপ্রিয়তা হয়ে উঠবে তখন কিন্তু এটি করা খুবই কঠিন হবে না প্রতিদিন ভিডিও আপলোড করলেই কিন্তু আপনার খুব তাড়াতাড়ি এই শর্ত পূরণ হয়ে যাবে অবশ্যই মনে রাখবেন যে আপনাকে তিন মাসের ভিতরে এটি করতে হবে তাহলে কিন্তু আপনার ফেসবুক পেজটি মনিটাইজেশন করতে পারবেন এবং এটি দেখার জন্য আপনি ফেসবুক এনালাইসিস নামের একটি অপশন রয়েছে সিটির ভিতরে দেখতে পারবেন যে বর্তমান সময়ে আপনার ফেসবুক পেজে কত পরিমাণে মিনিট হয়েছে।

এরপর যে স্টেপটি হচ্ছে আপনার ফেসবুক পেজে 10 হাজার ফলোয়ার সংগ্রহ করতে হবে যদি আপনি ফেসবুক থেকে মনিটাইজেশন নিয়ে কাজ করতে চান এবং ইনকাম করতে চান তাহলে আপনার ফেসবুক পেজ টি তে সর্বনিম্ন 10 হাজার ফলোয়ার থাকতে হবে তারপরে কিন্তু আপনি ফেসবুক মনিটাইজেশন এর জন্য আবেদন করতে হবে করতে পারবেন এবং এটির জন্য কিন্তু কোন লিমিট নেই এটি আপনাকে তিন মাসের সময় লাগবে না আপনি যদি 1 বছর 10 হাজার ফলোয়ার সংগ্রহ করতে পারেন তাহলে কোন প্রকার সমস্যা নেই তবে আপনাকে শুধু মিনিট তিন মাসের ভিতরে সংগ্রহ করতে হবে তাহলে কিন্তু আপনি আপনার ফেসবুক পেজের জন্য মনিটাইজেশন আবেদন করতে পারবেন।

ফেসবুক পেজ মার্কেটিং কিভাবে করে

যখন আপনার ফেসবুক পেজ টিতে সমস্ত স্টেপ বাই স্টেপ পুরনো করে ফেলবেন তখন আপনি কিন্তু আপনার ফেসবুক পেজটি যারা বিভিন্ন ধরনের মার্কেটিং করতে পারবেন যাকে বলা হয়েছে ফেসবুক মার্কেটিং তো আপনি চাইলে কিন্তু আপনার নিজের মার্কেটিং করতে পারেন যদি আপনার কোন প্রোডাক্ট বা পণ্য বিক্রি করার মত থাকে সেগুলো কিন্তু আপনি আপনার ফেসবুক পেজ টি তে পোস্ট করে খুব সহজেই বিক্রি করতে পারবেন যাকে বলা হয়েছে ফেসবুক মার্কেটিং আপনি ফেসবুক পেজ দ্বারা কিন্তু যে কোন জিনিসের মার্কেটিং করতে পারবেন ধরুন আপনার একটি ব্যবসায়িক ই-কমার্স ওয়েবসাইট রয়েছে সেখানে আপনি বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট সেল করে থাকেন যখন আপনার ফেসবুক পেজটি তো অনেক পরিমাণে লাইক এবং ফলো থাকবে এবং যখন আপনার ফেসবুক পেজটিতে প্রতিদিন মানুষ অনেক পরিমাণে দেখবে তখন কিন্তু আপনি চাইলে ই-কমার্স সাইটের যে কোন প্রোডাক্ট আপনার ফেসবুক পেজের মাধ্যমে বিক্রি করতে পারবেন।

বর্তমান সময়ে আপনি যদি কিছু জিনিস লক্ষ্য করেন বড় বড় সেলিব্রিটি গুলো যে রয়েছে অর্থাৎ বাংলাদেশি হোক বা অন্য দেশেই হোক বিভিন্ন সময় আমরা দেখতে পাই যে তাঁদের পেজগুলোতে বিভিন্ন প্রোডাক্ট এর ছবি আপলোড করা হয়েছে এবং সেখানে দাম মূল্য সহ বলা হয়েছে যে কিভাবে আপনারা সেখান থেকে সেই প্রোডাক্টগুলো ক্রয় করবেন এবং বর্তমান সময়ে দেখতে পারবেন যে সেলিব্রিটিরা যদি কোনোকিছু তাদের ফেসবুক পেজে পোস্ট করে তাহলে কিন্তু অনেক ফ্যান তাদের সেই প্রোডাক্টগুলো ক্রয় করে আপনার ফেসবুক পেজটি যখন অনেক পরিমাণে লাইক এবং ফলো থাকবে এবং আপনার পেজটি যখন ফেসবুকে খুবই জনপ্রিয়তা থাকবে তখন কিন্তু আপনি যে কোন প্রোডাক্ট এর পোস্ট করলে সেটি খুব দ্রুত বিক্রি হয়ে যাবে এভাবে কিন্তু আপনি আপনার নিজের যেকোন‌‌ প্রডাক্ট ফেসবুক পেজের মাধ্যমে মার্কেটিং করতে পারবেন এবং খুব দ্রুত আপনার প্রোডাক্ট গুলো সেল করতে পারবেন এটি হচ্ছে আপনার নিজের জন্য‌‌।

পর হচ্ছে আপনার ফেসবুক পেজ টিতে যখন অনেক পরিমাণে like-follow থাকবে এবং মানুষ দেখতে পারবে তখন কিন্তু মানুষ তাদের বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট বা পণ্য আপনার ফেসবুক পেজের মাধ্যমে প্রমোট করাতে চাইবে অর্থাৎ যেটিকে বলা হয়েছে মেইন ফেসবুক মার্কেটিং আপনি যদি অন্য কারো প্রডাক আপনার ফেসবুক পেজের মাধ্যমে প্রমোট করে দেন তাহলে কিন্তু সেটি পুরোদমে হবে ফেসবুক মার্কেটিং যারা ফেসবুক মার্কেটিং করতে আগ্রহী তারা অবশ্যই ফেসবুক পেজ তৈরি করে নিবেন এবং আপনার নিজস্ব যেকোন ফেসবুক পেজ থাকে তাহলে কিন্তু সবচেয়ে ভাল হবে আপনার ফেসবুক মার্কেটিং করার জন্য যখন আপনার ফেসবুক পেজে সব কিছু মানুষের কাছে ভালো লাগবে তখন কিন্তু মানুষ চাইবে আপনার ফেসবুক পেজে দ্বারা তাদের একটি প্রোডাক্ট বা পণ্য অন্য মানুষের কাছে পৌঁছাতে !

About Admin

পড়াশোনার পাশাপাশি ব্লগিং করতে পছন্দ করি। এবং অনলাইনে টেকনোলজি সবসময় শেখার চেষ্টা করতেছি। আমি যতোটুকু জানি চেষ্টা করি আমার ওয়েবসাইটে শেয়ার করার জন্য।

View all posts by Admin →

Leave a Reply

Your email address will not be published.